পেল না বউ, কপালে জুটল হাতকড়া

ঢাকার ধামরাইয়ে বিয়ে করতে গিয়ে বিয়ের আসরেই হাতকড়া পড়তে হয়েছে বরকে। জরিমানার টাকা দিয়ে তবেই ছাড়া পেয়েছেন। বরের অপরাধ অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েকে তিনি বিয়ে করতে বসেছিলেন। গতকাল শুক্রবার (৫ মার্চ) দুপুরে ধামরাই পৌরসভার তালতলা কমিশনার মোড়ে এ ঘটনা ঘটেছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকী সংবাদমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গত বৃহস্পতিবার আমাদের কাছে একটা বাল্যবিয়ের গোপন সংবাদ আসে। তখনই মেয়ের বাবাকে বলা হয়- যেন বিয়ে দেওয়া না হয়। এসিল্যান্ড তাদের নিষেধ করে আসছেন। তখন তারা বলেছিল, বিয়ে দেবে না। তারপরও আজ তারা বিয়ের আয়োজন করেছে।

বিয়ের আয়োজনের খবর পেয়ে শুক্রবার ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন ইউএনও। তিনি দেখেন, কনে একটি স্কুলের নবম শ্রেণিতে পড়ে। আর বর হলেন টাঙ্গাইলের নাগরপুর থানার ২৬ বছরের সাজ্জাদুর রহমান।এ বিষয়ে ধামরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও)ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকি বলেন, বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়। কনের বাবাকে ৫০ হাজার ও বরকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এ বিষয়ে পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. আবু সাঈদ বলেন, আমার ওয়ার্ডে কোনো বাল্যবিয়ে হবে না। তাই বিষয়টি জানানোর সঙ্গে সঙ্গে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইসতিয়াক আহমেদকে জানাই। তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে বিয়ে দিতে নিষেধ করেন। কিন্তু তার কথায় কর্ণপাত না বরে ওই স্কুলছাত্রীর পরিবার বিয়ে পড়ানোর আয়োজন করা হয়। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকি বিয়ে বন্ধ করে দেন।

Back to top button