আগুন নেভানোর পর ঘরে মিলল বৃদ্ধার লাশ

সিলেট নগরের কালীবাড়ি গোয়াবাড়ি এলাকায় অগ্নিকাণ্ডে অগ্নিদগ্ধ হয়ে এক বৃদ্ধা নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় পুড়ে ছাই হয়েছে চারটি বসত ঘর। আজ শনিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে গোয়াবাড়ির মোহনা আবাসিক এলাকার একটি কলোনিতে এই ঘটনা ঘটে।নিহত বৃদ্ধা শোভা রাণী চন্দ (৮০) সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার মজিদুপুরের মৃত সচিন্দ চন্দের স্ত্রী।

তিনি অসুস্থ থাকায় ঘর থেকে বের হতে পারেননি বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। প্রত্যক্ষদর্শী ও ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে, বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে মোহনা আবাসিক এলাকায় বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর্জা জামাল পাশার কলোনীতে অগ্নিকাÐের সূত্রপাত হয়।

এ সময় কলোনির চারটি ঘরে দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস এসে ৩০ মিনিট চেষ্টায় আগুণ নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে একটি ঘরের ভেতর থেকে শোভা রানীর দগ্ধ মৃতদেহ উদ্ধার করে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সিলেটের সহকারী পরিচালক মো. সফিকুল ইসলাম ভূঞা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছার আগেই কলোনির চারটি ঘর পুড়ে যায়। ঘটনাস্থলে পৌঁছে ২০ থেকে ২৫ মিনিটের চেষ্টায় আমরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনি। তারপর পুরো আগুন নেভানোর কাজ শেষ করতে এক ঘণ্টার মতো লেগেছে। ’

তিনি আরও বলেন, ‘বাসায় লোকজন ছিল না। একজন বৃদ্ধা ছিলেন। তিনি অসুস্থ। সে কারণে সম্ভবত বের হতে পারেননি। আমরা আগুন নেভানোর পর ভেতরে তার মরদেহ উদ্ধার করি। ‘

অগ্নিকাণ্ডের কারণ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে গ্যাসের চুলা চালু ছিল এবং শুকাতে দেওয়া কাপড় থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছে। একটি ঘরে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাতের পর তা বাকি ঘরগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। ’

Back to top button