দেশের মধ্যে একটা শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতি : ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘গুম-খুনের সঙ্গে জড়িতের বিচার করা হবে। আওয়ামী লীগ যে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি করেছে এর জন্য প্রত্যেক দায়ী ব্যক্তিকে চিহ্নিত করা হবে। তাদেরকে বিচারের আওতায় আনা হবে। জনগণই তাদেরকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাবে।

 আজ শনিবার সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে জাতীয়তাবাদী হেল্প সেলের উদ্যোগে বর্তমান সরকারের আমলে গুম-খুনের শিকার নেতাকর্মীদের পরিবারের সদস্যদের আর্থিক অনুদান প্রদান উপলক্ষে আলোচনাসভায় তিনি এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে গুম-খুন-নির্যাতিত ১৫ পরিবারের শিশুদের মাঝে ‘শহীদ নুরুল আলম উপবৃত্তি’ প্রদান করা হয়।মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, আদালতে গেলে দেখা যায় শুধু বিএনপি নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নামে অসংখ্য মামলা। সেই ধারাবাহিকতা এখনো বন্ধ হয়নি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড, গুম-খুন এবং তুলে নিয়ে গিয়ে গুলি করে হত্যা বা পঙ্গু করে দিয়েছে। বাংলাদেশকে একটা ভয়াবহ নরকে পরিণত করেছে আওয়ামী লীগ সরকার। যে দেশের মানুষ অল্পতে সন্তুষ্ট থাকে সেই দেশটাকে আজকে তারা ভয়াবহ শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতিতে নিয়ে গেছে।

গণতন্ত্র না থাকলে সব কিছু অসাড় হয়ে যায় মন্তব্য করে তিনি বলেন, গণতন্ত্র না থাকলে খুন-গুম ও বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে থাকে।

সংগঠনের সদস্য তানভীর আহমেদ রবিনের সভাপতিত্বে ও মামুন খানের সঞ্চালনায় আলোচনাসভায় বিএনপি নেতা আবদুস সালাম, এ বি এম মোশাররফ হোসেন, ডা. রফিকুল ইসলাম, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আবদুল কাদির ভূঁইয়া জুয়েল, ছাত্রদল নেতা ইকবাল হোসেন শ্যামল, সিনিয়র সহসভাপতি কাজী রওনাকুল ইসলাম শ্রাবণ, সাংগঠনিক সাঈদ আহমেদ জুয়েল বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে গুম-খুন-নির্যাতিতদের মধ্যে সাংসদ ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনা, ছাত্রদল নেতা নুরুল আলম নূরের কন্যা উম্মে হাবিবা মীম, পারভেজ রেজার মেয়ে হৃদি প্রমুখ তাদের বেদনার কথা আলোচনায় তুলে ধরে।

Back to top button