শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা, যুবকের আমৃত্যু কারাদণ্ড

গাইবান্ধার ফুলছড়িতে শিশুকে অপহরণ করে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যার ঘটনায় মাজেদুল ইসলাম কালটু নামের এক যুবককে আমৃত্যু কারাদণ্ড ও এক লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৮ ফেব্রয়ারি) দুপুরের দিকে গাইবান্ধা নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইবুনালের বিচারক কে এম শহিদ আহম্মেদ এ রায় ঘোষণা করেন। সেইসাথে মামলার অপর তিন আসামিকে খালাস দেয়া হয়েছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৭ সালের ৩১ আগস্ট গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার গজারিয়া বাউসী গ্রামের সেলিম মিয়ার শিশুকন্যা সিনথিয়া আক্তারকে একই গ্রামের সায়দার রহমানের ছেলে মাজেদুল ইসলাম কালটু অপহরণ করেন।

পরে ধর্ষণ শেষে শ্বাসরোধে হত্যা করে বাড়ির পাশের একটি পুকুরের কচুরিপানার ভেতর লুকিয়ে রাখা হয় সিনথিয়াকে। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে পুকুরের কচুরিপানা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় শিশুটির বাবা সেলিম মিয়া বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ শুনানির পর মঙ্গলবার আদালত রায় দিলেন। এ রায়ে নিহতের পরিবার ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

গাইবান্ধা নারী ও শিশু নির্যাতন আদালত-১ এর পাবলিক প্রসিকিউটর শাহীন গুলসান নাহার মুনমুন জানান, দীর্ঘ শুনানির প্রায় ৫ বছর পর অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় মাজেদুল ইসলাম কালটুর উপযুক্ত শাস্তি নিশ্চিত হয়েছে। এই রায়ে আইনজীবী হিসেবে আমরা সন্তুষ্ট।

Back to top button