মেসির কারণে করুণ দশা পিএসজির

সেরা তারকারা এক দলে থাকা মানেই তো প্রতিপক্ষের আতঙ্ক। একসঙ্গে প্রতিপক্ষের জালকে ব্যাতি-ব্যস্ত রাখবেন এটাই তো হওয়ার কথা ছিল।  এর উপর সেটা যদি হয় মেসি-নেইমার-এমবাপ্পের মতো তারকা, তাহলে তো কথাই নেই। কিন্তু পিএসজিকে নিয়ে উল্টো চিত্রই দেখছে ফুটবল বিশ্ব। পিএসজিকে নিয়ে যে স্বপ্ন দেখছিল ভক্তরা সেটির সমাধি হল গতকাল রাতে, রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে।

রিয়ালের বিপক্ষে প্রথম লেগে কিলিয়ান এমবাপ্পের গোলে ১-০তে জিতেছিল প্যারিসের দলটি। দ্বিতীয় লেগেও এমবাপ্পের গোলেই এগিয়ে যায় তারা। কিন্তু শেষমেশ দুই লেগ মিলিয়ে ৩-২ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে চ্যাম্পিয়নস লিগের সবচেয়ে সফল দল রিয়াল।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কালকের ম্যাচের পর সমর্থকদের তীব্র আক্রমণের মুখেই পড়েছেন আর্জেন্টাইন তারকা মেসি। সমর্থকদের অনেকেই পিএসজির করুণ দশার জন্য মেসিকেই দায়ী করছেন।ভক্তদের মনে আরো বড় প্রশ্ন লিওনেল মেসিকে দলে টেনে কী লাভ হলো পিএসজির! রাগে-ক্ষোভে তাই বলেই ফেলছেন, মেসির কারণেই করুণ দশা পিএসজির। তাদের অভিযোগ, আরও পাকাপোক্ত হচ্ছে প্রথম লেগে মেসির পেনাল্টি মিসের কারণেই।

প্যারিসে এক গোলে এগিয়ে থাকা পিএসজির অনেক বড় সুবিধাই হতো মেসি পেনাল্টিটি কাজে লাগাতে পারলে। কাল মাদ্রিদে হয়তো আরও নির্ভার থেকেই মাঠে নামা যেত। কিন্তু সেসবের কিছুই হয়নি মেসির পেনাল্টি মিসে।

মেসি আসার আগে পিএসজি তো চ্যাম্পিয়নস লিগে আরও ভালো করেছে। সমর্থকেরা টুইটার, ফেসবুকে এসবই বলছেন। মেসি পিএসজিকে পেছনের দিকেই টানছেন-তাদের কথা এমনই। ২০২০ সালে পিএসজি চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপার খুব কাছেই পৌঁছে গিয়েছিল।ফাইনালে হেরেছিল বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ১-০ গোলে। গত মৌসুমে সেমিফাইনালেও উঠেছিল তারা। কিন্তু মেসি আসার পর কোয়ার্টার ফাইনালেও পা রাখা হলো না!

সমর্থকদের সবচেয়ে বড় হতাশার জায়গাটা হলো, মেসি কোনোভাবেই পার্থক্যটা গড়ে দিতে পারছেন না। কাল বার্নাব্যুতে আরও একটি হতাশাজনক রাত ছিল আর্জেন্টাইন তারকার। বারবার বল হারিয়েছেন।

মেসির ব্যাপারে আরো কিছু বিষয় উদ্বিগ্ন করে তুলছে পিএসজি সমর্থকদের। ভাবা যায়, মেসি গত ৭ মাসে ফ্রেঞ্চ লিগে গোল করেছেন মাত্র দুটি! সব মিলিয়ে পিএসজির জার্সিতে মাত্র ৭ গোল তার। বার্সেলোনার হয়ে সবশেষ মৌসুমেই তার গোলের সংখ্যা ছিল ৩০টি। এবার পিএসজির হয়ে তিনি ২৫ ম্যাচে ২০৬১ মিনিট খেলেছেন। গোলে সহায়তা দিয়েছেন ১০টি।

কাল দলের প্রয়োজনের সময়েও জ্বলে উঠতে পারলেন না। পুরোনো ‘শত্রু’ রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে ম্যাচে সর্বশেষ ৯ ম্যাচে তার কোনো গোল তো নেই-ই, গোলে সহায়তাও তিনি করতে পারেননি।

Back to top button