ভারতে অনুপ্রবেশের দায়ে বাংলাদেশি যুবককে পিটিয়ে হত্যা

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর সীমান্তে ভারতে অনুপ্রবেশ করায় জনিক মিয়া (২৩) নামে বাংলাদেশি এক যুবককে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে ভারতীয় যুবকদের বিরুদ্ধে। নিহত যুবক উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের বড়ছড়া গ্রামের জিল্লুর রহমানের ছেলে। সোমবার (১৪ মার্চ) সকালে উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের ভাঙ্গারঘাট কোয়ারি নামক স্থানে তার জনিককে আহত অবস্থায় ফেলে রেখে যায় ভারতীয় যুবকরা।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়,উপজেলার বড়ছড়া সীমান্ত এলাকার স্পাই ইসহাক মিয়ার মাধ্যমে ম্যানেজার বাংলো দিয়ে রবিবার রাতে জনিক মিয়াসহ তিনজন ভারতে অনুপ্রবেশ করে। পরে সেখানকার স্থানীয়রা তাকে চোর সন্দেহে পিটিয়ে জিরো পয়েন্টের ভাঙ্গারঘাট কোয়ারি নামক স্থানে ফেলে রেখে যায়। সকালে লাশ দেখতে পায় স্থানীয় এলাকাবাসী। জানতে পেরে নিহতর পরিবারের লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে। পরে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে বিশ্বম্ভপুর উপজেলা এলাকায় মারা যান।

নিহতের পিতা জিল্লুর রহমান জানান,রবিবার রাতের খাবার খেয়ে বাড়ির বাহিরে যায়। এর পর আজ সোমবার সকালে তাকে পাই। এবিষয়ে বড়ছড়া বিজিবি ক্যাম্পের নায়েক সুবেদার আব্দুস ছাত্তার এই ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কিছুই জানে না বলে জানান।

সুনামগঞ্জ ২৮ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান বলেন, এ ধরনের একটি ঘটনা শুনেছি। তবে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে কেউ এখনও অভিযোগ করেনি। অভিযোগ করলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Back to top button