কাল ১৪ দলের বৈঠক ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী

দেশের বর্তমান পরিস্থিতি ও দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের বৈঠক ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী ও দলটির সভাপতি শেখ হাসিনা। বৈঠকে ১৪ দলীয় জোটের শরিক নেতারা ছাড়াও আওয়ামী লীগের শীর্ষ কয়েকজন নেতা উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

তবে আমন্ত্রণ পেলেও বৈঠকে অংশ নেবে না জাসদের একাংশ বাংলাদেশ জাসদ। সোমবার (১৪ মার্চ) আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তারা জানান, মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) বেলা ১১টায় গণভবনে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এতে ১৪ দলীয় জোটের শরীক দলগুলোর নেতাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

তবে এই বৈঠকে অংশ নিচ্ছেন না জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) একাংশের সভাপতি শরীফ নূরুল আম্বিয়া ও সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান।‘আওয়ামী লীগ শরিকদের গুরুত্ব দিচ্ছে না’ বলে দীর্ঘদিন ধরেই অভিযোগ করে আসছেন দলগুলোর নেতারা। বিভিন্ন সময় জোটকে ‘নিষ্ক্রিয়’ বলে দাবি করে গণমাধ্যমে নিজেদের অবস্থানও তুলে ধরেছিলেন তারা।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন, বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে নিজেদের কর্মপরিকল্পনা ঠিক করতে জোট নেত্রীর সঙ্গে বৈঠকের দাবিও ছিল তাদের। ইসি গঠনের আগেও তারা বৈঠকের দাবি তুলেছিল। এসব পরিস্থিতি বিবেচনায় জোটের নেতাদের ক্ষোভ প্রশমন করে ঐক্যবদ্ধ কর্মসূচি নির্ধারণেই বৈঠক ডাকা হয়েছে বলে জানা গেছে।

বৈঠকের বিষয়ে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘দীর্ঘদিন পর প্রধানমন্ত্রী আমাদের ডেকেছেন। ১৪ দলীয় জোটের নেতাদের সঙ্গে তিনি কথা বলবেন। দেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি, ১৪ দলের সাংগঠনিক, রাজনৈতিক বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা হবে।’

১৪ দলীয় জোট ‘বর্তমানে কার্যকর নয়’ দাবি করে বৈঠকে অংশ নেবেন না বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ জাসদের সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ১৪ দলীয় জোটের নেতাদের ডেকেছেন শুনেছি। আমাকেও ফোন করা হয়েছিল। আমরাতো ১৪ দল কন্টিনিউ করার পক্ষে না, এটা এখন অতীত। আমরা যাচ্ছি না।’

Back to top button