বরিশালে কলেজছাত্রীর আত্মহননে কনস্টেবল স্বামীর বিচার দাবি

বরিশাল ব্রজমোহন (বিএম) কলেজের সদ্য সাবেক শিক্ষার্থী সাদিয়া আক্তার সাথী আত্মহননে অভিযুক্তদের কঠোর বিচারের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বরিশাল সচেতন নাগরিকবৃন্দের ব্যানারে সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় নগরীর সদর রোডের অশ্বিনী কুমার হলের সামনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

সাদিয়ার ভাই মেহেদী হাসান রতনের সভাপতিত্বে এবং জেলা ছাত্রফ্রন্ট সহ-সভাপতি হাফিজুর রহমান রাকিবের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জেলা বাসদ সদস্য সচিব ডা. মনিষা চক্রবর্তী এবং সাদিয়ার পরিবারের সদস্যরা।

বক্তারা বলেন, সাদিয়ার স্বামী পুলিশ কনস্টেবল মাইনুল ইসলাম তার প্রথম বিয়ে এবং দুই সন্তানের তথ্য গোপন রেখে সাদিয়াকে বিয়ে করেছে। চাকরি দেয়ার নামে শ্বশুর বাড়ির অর্থ আত্মসাৎ করেছে। নানা অজুহাতে তাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হতো। নির্যাতনের মুখেই সে আত্মহননের পথ বেছে নেয় বলে দাবি বক্তাদের। তারা সাদিয়ার অভিযুক্ত স্বামী ও তার সহযোগীদের কঠোর বিচার দাবি করেন।
উল্লেখ, গত ৭ মার্চ দুপুরে নগরীর বৈদ্যপাড়া এলাকায় পুলিশ কনস্টেবল মাইনুলের ভাড়া বাসা থেকে সাদিয়ার গলায় ফাঁদ দেয়া ঝুলন্ত নিথর দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় পরদিন ৮ মার্চ কোতয়ালী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন তার ভাই মেহেদী হাসান।

এদিকে স্ত্রী আত্মহননে অভিযুক্ত পুলিশ কনস্টেবল মাইনুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে বলে আজ দুপুরে জানিয়েছেন জেলা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের ওসি আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা। বর্তমানে আত্মগোপনে রয়েছে সে।

Back to top button