বাবাকে কখনও কাছে পাইনি, তাই মনেও পড়েনি: আলিয়া

বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী আলিয়া ভাট। সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে তার ‘গাঙ্গুবাই’ সিনেমাটি। এটি খান-কুমার-কাপুরদের ভিড়েও ১০০ কোটির ক্লাবে পৌঁছে গেছে। বলিউডে কাজ করছেন তাবড় পরিচালকদের সঙ্গে। এবার হলিউড যাত্রারও প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন তিনি। বলা হয়, তিনি যাতেই হাত দেন, তাতেই সোনা ফলে। মঙ্গলবার সেই আলিয়া ভাটের ২৯তম জন্মদিন। অভিনেত্রী হওয়ার আগে কেমন ছিলেন তিনি? বিশেষ দিনে ফিরে দেখা যাক তার শৈশব।

আলিয়ার শৈশব জুড়ে ছিলেন মা সোনি রাজদান। বাবা মহেশ ভাট তখন দূরের মানুষ। অতীতে এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী বলেন, “ছোটবেলায় বাবাকে আমার তারকা মনে হত। যে মাঝেমাঝে বাড়িতে আসে। আবার চলে যায়। বাবাকে সেভাবে কখনও পাইনি। তাই তার কথা বিশেষ মনেও পড়ত না।”

সন্তানদের দেখাশোনার যাবতীয় দায়িত্ব ছিল সোনির। শ্যুট নিয়ে ব্যস্ত থাকতেন মহেশ। দুই মেয়েকে সময় দেওয়ার অবকাশ কোথায়! তবে পরিচালকের চেষ্টাতেই সেই ছবি বদলায়। কাজকে টপকে গুরুত্ব পায় পরিবার। আলিয়ার কথায়, “বাবা আমাদের সঙ্গে বেশি করে সময় কাটাতে শুরু করল। আমরা সাপ লুডু খেলতাম। কিন্তু আমি কাজ শুরু করার পর আমাদের বন্ধুত্ব হল। এখন বুঝতে পারি এই ধরনের কাজ করতে গেলে কতটা সময় ব্যয় হয়।”
বাবাকে পাননি আর পাঁচটা শিশুর মতো করে। কিন্তু অভিযোগ নেই আলিয়ার। দিনরাত কাজ করে যাওয়ার অনুপ্রেরণা পেয়েছেন বাবা মহেশের থেকেই।

Back to top button