ধর্মপালনে হিজাব পরিধান বাধ্যতামূলক নয়: কর্ণাটক হাইকোর্ট

ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য কর্ণাটক বেশ কয়েকমাস ধরেই হিজাব বিতর্কে উত্তাল হয়ে উঠেছিল। এর জেরে উত্তাল হয় পুরো দেশ। বিষয়টি গড়ায় আদালত পর্যন্ত। মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) সেই হিজাব মামলায় গুরুত্বপূর্ণ রায় দিয়েছে কর্ণাটক হাইকোর্ট।  আদালত জানিয়েছে, ধর্ম পালনের জন্য হিজাব বাধ্যতামূলক নয়। মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

এছাড়া রায়ে স্কুল ইউনিফর্ম নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ মন্তব্য করেছে আদালত। বিচারপতিদের ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছেন, স্কুল ইউনিফর্ম একটি যুক্তিসঙ্গত বিধিনিষেধ, যা সাংবিধানিকভাবে বৈধ। আদালত জানিয়েছে, স্কুলের পোশাক নিয়ে রাজ্য সরকারের যেকোনো আদেশ জারি করার ক্ষমতা রয়েছে। একইসঙ্গে মামলা সংক্রান্ত রিট পিটিশনও খারিজ করে দিয়েছে আদালত।

হিজাবের পক্ষে অনেকদিন ধরেই আন্দোলন করে আসছেন কর্ণাটকের মুসলিম শিক্ষার্থীরা। কিন্তু আদালতের এই রায়ের কারণে হিজাব পরা নিষিদ্ধ করার বিপক্ষে উচ্চ আদালতে দায়ের হওয়া সব পিটিশন খারিজ হয়ে গেল।

গত ফেব্রুয়ারিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোনো ধরনের ধর্মীয় পোশাকের ওপর অস্থায়ীভাবে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল কর্ণাটক আদালত। হিজাব বা গেরুয়া উত্তরীয়র ওপরও জারি হয়েছিল নিষেধাজ্ঞা। কর্ণাটকের বেশ কিছু স্কুলে হিজাব নিষিদ্ধ হওয়ার পক্ষে-বিপক্ষে যে বিক্ষোভ হয়েছিল, তার পরিপ্রেক্ষিতেই আদালত ওই রায় দিয়েছিল।

১১ দিনের শুনানির পর গত ২৫ ফেব্রয়ারি আদালত ওই রায় দিয়েছিল। ওই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে অনেকেই সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি শুনানিতে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিলেন, এটি অত্যন্ত সংবেদনশীল বিষয়। তাই আমরা হাইকোর্টের রায় না আসা পর্যন্ত এই মামলায় কোনো রকম হস্তক্ষেপ করব না।

এদিকে বিশৃঙ্খলার আশঙ্কায় কর্ণাটক সরকার এক সপ্তাহের জন্য বেঙ্গালুরু শহরে বড় জমায়েতের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। ব্যাঙ্গালুরুতেও ১৫ থেকে ১৯ মার্চ পর্যন্ত সব ধরনের বড় জমায়েত নিষিদ্ধ করা হয়েছে। হিজাব বিতর্কের সূত্রপাত হওয়া উদুপিতে মঙ্গলবার সব স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখা হয়।

Back to top button