৭৯ বছর বয়সেও বিয়ে করেননি তবুও আফসোস নেই নায়িকার

পদ্মশ্রী’ পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রবীণ অভিনেত্রী আশা পারেখ। ৭৯ বছর বয়েসী এই অভিনেত্রী অভিনয় ক্যারিয়ারে অসংখ্য দর্শকপ্রিয় সিনেমা উপহার দিয়েছেন। পেয়েছেন খ্যাতি ও সম্মান। তবে ব্যক্তিগত জীবনে এখনো অবিবাহিত। বিয়ে না করার বিষয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হারপার্স বাজার ইন্ডিয়ার সঙ্গে কথা বলেছেন বরেণ্য এই অভিনেত্রী।

আশা পারেখ বলেন—‘আমার মনে হয় বিয়ে করাটা আমার ভাগ্যে ছিল না। সত্যি বলতে, আমি বিয়ে করতে এবং সন্তান ধারণ করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু এটা হওয়ার কথা ছিল না। আমার এই ব্যাপারে একেবারেই কোনো অনুশোচনা নেই।’

এক পরিচালকের সঙ্গে বিয়ে হওয়ার কথা হয়েছিল আশা পারেখের। এ বিষয়ে তিনি বলেন—‘এক বিবাহিত পরিচালকের সঙ্গে বিয়ে পর্যন্ত গড়ানোর মতো অবস্থা হয়েছিল। কিন্তু বিয়ে করিনি। কারণ কাজ না করে, কারো গৃহবধূ হয়ে থাকতে পারব না।’

১৯৫২ সালে শিশুশিল্পী হিসেবে বড় পর্দায় পা রাখেন আশা পারেখ। ১৯৫৯ সালে প্রথম নায়িকা চরিত্রে অভিষেক হয় তার। ষাট ও সত্তর দশকে অনেক ব্যবসাসফল সিনেমা উপহার দিয়েছেন। ওই সময়ে হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত অভিনেত্রী ছিলেন তিনি।

আশা পারেখ অভিনীত ব্যবসাসফল উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র হলো—‘যাব পেয়ার কিসিসে হোতা হ্যায়’, ‘দিল দেকে দেখা’, ‘তিসরি মাঞ্জিল’, ‘লাভ ইন টোকিও’, ‘অ্যায় দিন বাহার কে’, ‘কাটি পাতাং’ প্রভৃতি।

Back to top button