ইরানের মিসাইল কার্যক্রম: ইসরাইলের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ মার্কিন জেনারেলের

ইরানের কাছে ৩ হাজারের বেশি ব্যালিস্টিক মিসাইল রয়েছে। এগুলোর একটি বড় অংশই ইসরাইলে হামলা চালাতে সক্ষম। ইসরাইলের জন্য এমন সতর্কবার্তাই দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের মার্কিন জেনারেল কেনেথ ম্যাকেঞ্জি। মঙ্গলবার তিনি বলেন, ইরানের কাছে এখন পরমাণু অস্ত্র নেই।

কিন্তু আমি তাদের ব্যালিস্টিক মিসাইল প্রোগ্রামের বড় হয়ে ওঠা নিয়ে উদ্বিগ্ন। সিনেটের আর্মড সার্ভিস কমিটির কাছে এই উদ্বেগ প্রকাশ করেন ম্যাকেঞ্জি। জেরুজালেম পোস্ট জানিয়েছে, গত সপ্তাহেই ইসরাইল সফর করেছিলেন ম্যাকেঞ্জি। শিগগিরই তিনি সেনাবাহিনী থেকে অবসর নিচ্ছেন।

এর আগে শেষ বারের মতো ইসরাইল সফর করেন তিনি। ইসরাইলে তিনি প্রধানমন্ত্রী নাফটালি বেনেট, প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গান্টজ এবং সেনাবাহিনী প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল আভিভ কোহাভির সঙ্গে বৈঠক করেন। এরপর যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে গিয়েই ইসরাইলকে নিয়ে এই উদ্বেগের কথা জানালেন তিনি।

সিনেট কমিটিকে ম্যাকেঞ্জি জানান, ইরানের কাছে এখন বিভিন্ন ধরণের ৩ হাজারের বেশি মিসাইল রয়েছে। এর একটি বড় অংশই ইসরাইলের গুরুত্বপূর্ণ শহর তেল আবিবে হামলা চালতে সক্ষম। তবে ইউরোপ এখনো ইরানের হাত থেকে নিরাপদ কারণ, ইরানি মিসাইলের রেঞ্জ ইউরোপে হামলা চালানোর জন্য যথেষ্ট নয়।

ম্যাকেঞ্জির লিখিত বিবৃতিতে তিনি বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের সবথেকে বড় হুমকি হচ্ছে ইরানের মিসাইল কার্যক্রম। দেশটি এরইমধ্যে পরমাণু বোমা বহনে সক্ষম ব্যালিস্টিক মিসাইল আবিষ্কার করেছে। বেশ কয়েকবার সেই মিসাইলের পরীক্ষাও চালানো হয়েছে। গত ৫ থেকে ৭ বছরে ইরান মিসাইল তৈরিতে প্রচুর অর্থ বিনিয়োগ করেছে।

Back to top button