চুয়াডাঙ্গার কৃষি বিভাগের অফিস ভাংচুর করে দখল করার পরিকল্পনা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে

মোঃ আব্দুল্লাহ হক চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের সরোজগঞ্জ বাজারের বিভাগীয় সিড অফিস ও উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তার অফিস কাম বাসভবন গুঁড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এর বিরুদ্ধে। এস্ককাভেটর দিয়ে গুঁড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। ফলে এ এলাকার কৃষি কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। ভবনটি ৫০ শতাংশ জমির ওপর নির্মিত। ভবনের ৯০ শতাংশ গুঁড়িয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। জমি দখলের উদ্দেশ্যে দুর্বৃত্তরা রাতের আঁধারে ভবনটির ক্ষতিসাধন করেছে। এতে ৫০ লাখ টাকার সরকারি সম্পদের ক্ষতি হয়েছে।
চুয়াডাঙ্গা জেলার সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের সরোজগঞ্জ বাজারের ৭৮ নম্বর বোয়ালিয়া মৌজাভুক্ত এসএ ২৪২ ও আরএস ৬৩১ নম্বর দাগের ওপর ভবনটি অবস্থিত।
স্থানীয়রা জানান, কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান মানিকের নির্দেশে কৃষি অফিসের ভবনটি রাতের আঁধারে ভাঙা হয়েছে। এস্ককাভেটর মেশিন ব্যবহার করা হয়েছে। চেয়ারম্যান ক্ষমতাসীন দলের নেতা। তার বিরুদ্ধে কারও মুখ খোলার সাহস নেই।
তবে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান মানিক জানান, সাবেক চেয়ারম্যান জমিটি কৃষি অফিসের ফলদ ও শস্য কার্যক্রম চালানোর জন্য দান করেন। কিন্তু তারা কোয়াটার হিসেবে ব্যবহার করছে। আল্লাহর রহমতে এটি রাতে ভেঙে পড়েছে। প্রাণহানি ও ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষা হয়েছে।
চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা তালহা জুবাইর মাশরুর বলেন, ‘নিয়মিত খাজনা দিই। জমি ও ভবন কৃষি অফিসের। সরকারি সম্পদের প্রায় ৫০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। দুর্বৃত্তরা রাতের আঁধারে এস্ককাভেটর মেশিন দিয়ে ভবন গুঁড়িয়ে দিয়েছে।
চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহাসিন বলেন, ‘বিষয়টি আমি শুনেছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Back to top button