নারায়ণগঞ্জে গণধর্ষণের শিকার গার্মেন্টস কর্মী গ্রেফতার ৩

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার বক্তাবলীতে এক গার্মেন্টস কর্মী গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। এ ঘটনায় তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে ওই তরুণীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত তিনজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলো-সিরাজগঞ্জ জেলার শাহাজাদপুর থানার হাটপাচিলের মৃত আয়নালের ছেলে আলমগীর হোসেন ওরফে জনি (২৭), ফতুল্লা থানার ইসদাইর (গাবতলীর) দোহার ভিলার আলমাছ ঢালীর ছেলে মাহফুজুর রহমান ওরফে মুন্না (২৬), আড়াইহাজার থানার পাচঁআনির মো. আব্দুল হাইয়ের ছেলে মো. আব্দুল গাফফার (২৫)।
থানা পুলিশ জানায়, গ্রেফতারকৃত আলমগীর ও বাদী মাসদাইরস্থ একটি গার্মেন্টসে কর্মরত ছিল। সেখানে চাকরিকালীন সময়ে গ্রেফতারকৃত আলমগীর তাকে কু-প্রস্তাব প্রদান করে। এতে সে অসম্মতি জানিয়ে কর্তৃপক্ষকে জানালে আলমগীরকে চাকরিচ্যুত করা হয়। পরে সে অনত্র্য চাকরি নেয়।

রবিবার (২০ মার্চ) রাত ৮টার দিকে ওই তরুণী নিজ কর্মস্থল থেকে বের হলে আলমগীরের সঙ্গে তার দেখা হয়। পরে কৌশলে তাকে একটি অটোরিকশায় করে বক্তাবলী চর রাজাপুরস্থ শুক্কুর আলীর হাস-মুরগির খামারে নিয়ে যায়। সেখানে আলমগীর তাকে জোরপূর্বক দুই দফায় ধর্ষণ করার পর সেখান থেকে চলে যায়। পরে গ্রেফতারকৃত মুন্না ও গাফফার তাকে রাতভর আটকে রেখে একাধিকবার পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এতে সে অসুস্থ হয়ে পড়লে সকাল আটটার দিকে খামার থেকে তাকে বের করে একটি অটোরিকশায় তুলে দেয়। এ সময় ধর্ষণকারীরা ওই তরুণীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও রেখে দেয়।

ফতুল্লা মডেল থানার ইনচার্জ (ওসি) রকিবুজ্জামান জানান, মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত তিন ধর্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। ওই তরুণীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামিদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

Back to top button